Image Not Found!
ঢাকা   রবিবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সর্বশেষ সংবাদ

  নালিতাবাড়ীতে এসএসসি ৯৭ ব্যাচের ছাত্র-শিক্ষক মিলন মেলা ও সম্মাননা প্রদান (95)        পাখি সংরক্ষণে অবদান রাখায় শেরপুর বার্ড কনজারভেশন সোসাইটি পেলেন বিশেষ পুরস্কার (91)         শেরপুরে পরিবহন মালিক, চালক,শ্রমিক, ও হেলপারদের নিয়ে ট্রাফিক আইন সচেতনতামূলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত (95)        কলমাকান্দায় ভুট্টা চাষের স্বপ্ন দেখছেন কৃষকরা (94)        অবশেষে জামিনে মুক্ত কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক নেতা পাইলট (94)        শেরপুরে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস উপলক্ষে বই পাঠ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত (95)        কলমাকান্দায় নৌকা ডুবে এক ব্যক্তি নিখোঁজ (95)        শ্রীবরদীতে ফাঁসিতে ঝুঁলে শিক্ষার্থীর আত্বহত‍্যা (95)        ঘুমানোর সময় আলো জ্বালিয়ে রাখলে আমাদের শরীরের অনেক ক্ষতি হতে পারে (90)        সেরা ১০০ জন ফুটবলারের তালিকায় মেসি নাম্বার ওয়ান (84)      

ওমিক্রন আতঙ্কে কসবা বাসী, সতর্ক অবস্থানে প্রশাসন

কসবা(ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি: দক্ষিণ আফ্রিকায় উদ্ভূত করোনাভাইরাসের নতুন ধরণ ‘ওমিক্রন’ আতঙ্কে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলাবাসী। এ অবস্থা ঠেকাতে সতর্ক রয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

সদ্য দেশে আসা পাঁচ দক্ষিণ আফ্রিকা প্রবাসীকে নিজ বাসভবনে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন এবং প্রত্যেকের বাড়িতে নির্দেশনামূলক স্টিকার লাগিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। বুধবার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তাদের বাড়িতে গিয়ে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

সরেজমিনে খাড়েরা ইউনিয়নের খাড়েরা গ্রামের আলমগীর হোসেন, বিনাউটি ইউনিয়নের সৈয়দাবাদ গ্রামের আল আমিন ও কসবা পৌর এলাকা গুরোহিত গ্রামের লোকমান হোসেনের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় তারা পরিবারসহ হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। উপজেলা প্রশাসন মঙ্গলবার তাদের বাড়িতে নির্দেশনামূলক স্টিকার লাগিয়ে এসেছে। এ নিয়ে এলাকার মানুষের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

কোয়ারেন্টাইনে থাকা আলমগীরের সাথে বুধবার সকাল ১১টায় মুঠোফোনে জানান, তিনি পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ে ২০১৫ সাল থেকে গাড়িচালক পদে চাকরি করছেন। গত সাড়ে তিন বছর পূর্বে মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে তিনি পরিবারসহ দক্ষিণ আফ্রিকায় যান। সেখানে তিনি বাংলাদেশ দুতাবাসে কর্মরত ছিলেন।

গত ১৮ নভেম্বর মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে বদলী হয়ে দেশে এসে পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ে কাজে যোগদান করেন। গত ২৮ নভেম্বর ১০দিনের ছুটি নিয়ে গ্রামের বাড়ি খাড়েরায় আসেন। তিনি জানান, দক্ষিণ আফ্রিকায় থাকা অবস্থায় তিনি ও তার স্ত্রী ফাইজারের দু’টো টিকাই নিয়েছেন। গত মঙ্গলবার কসবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ উল আলম তাদের বাড়িতে গিয়ে তাদের খোজখবর নেন এবং তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেন। বুধবার (১ ডিসেম্বর) সকালে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে করোনা পরীক্ষার জন্য তাদের সকলের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

এদিকে গুরোহিত গ্রামে লোকমান হোসেনের বাড়িতে গিয়ে জানা যায়, লোকমান গত ১৮ নভেম্বর দেশে আসেন। গত মঙ্গলবার উপজেলা প্রশাসন তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেয় এবং বুধবার (১ ডিসেম্বর) সকালে করোনা পরীক্ষার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে স্বাস্থ্য কর্মী এসে নমুনা নিয়ে যায়।

কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অরুপ পাল জানান বুধবার সকালে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আগত প্রবাসী পাঁচজন ও তাদের সংশ্লিষ্ট পাঁচজনসহ মোট দশজনের করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

দুপুরে কসবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ উল আলম জানান, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে সদ্য দেশে আসা কসবা উপজেলার খাড়েরা গ্রামের একই পরিবারের মো. হারিজ ভূইয়ার ছেলে মো. আলমগীর হোসেন ভূইয়া তার স্ত্রী তাহেরা বেগম ও তার পাঁচ বছরের কন্যা আলিশা বিনতে আলমগীর ও কসবা পৌর এলাকা গুরোহিত গ্রামের আরু মিয়ার পুত্র লোকমান মিয়া এবং বিনাউটি ইউনিয়নের সৈয়দাবাদ গ্রামের মো. আল আমিনকে তাদের নিজ বাসভবনে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

তিনি জানান, আজ বুধবার সকালে তাদের এবং তাদের পরিবার সংশ্লিষ্ট মোট ১০জনের নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। তাছাড়া তাদের সাথে উপজেলা প্রশাসন সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রক্ষা করছেন।