Image Not Found!
ঢাকা   ২৯ জুন ২০২২ | ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সর্বশেষ সংবাদ

  ঝিনাইগাতীতে  বন্যার্তদের মাঝে রেডক্রিসেন্টের  ত্রান বিতরন  (95)        নালিতাবাড়ীতে সঞ্জয় সূত্রধর ও লোকনাথ চন্দ্র শীল মাদক সহ গ্রেফতার (95)        শেরপুর পৌরসভার ৮১ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণা (95)        পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে শেরপুরে বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত (95)        ১১ দফা দাবিতে শেরপুর জেলা রবিদাস সম্মেলন অনুষ্ঠিত (95)        নালিতাবাড়ীতে নদীতে নৌকা ডুবে নিখোঁজ ব্যবসায়ীর ১৬ দিন পর লাশ উদ্ধার (95)        শেরপুরের শ্রীবরদীতে ৬  জনকে কুপিয়ে জখম,মা-মেয়েসহ ৩ জনের মৃত্যু (95)        নালিতাবাড়ীতে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা মেরামত করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান (95)        ঝিনাইগাতীতে  পাহাড়ি ঢলে কেড়ে নিল উবায়দুলের বসৎবাড়ি   (95)        বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ পরিষদ এর নবনির্বাচিত সভাপতি শামীম, সম্পাদক ক্লার্ক (4)      

শেরপুরে আদালত থেকে হাতকড়াসহ পালাতক আসামী ফের গ্রেফতার


শেরপুর প্রতিনিধি: শেরপুরের আদালত চত্বর থেকে পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে হাতকড়াসহ মো. আব্দুস সালাম (২৫) নামে মাদক মামলার এক আসামী পালিয়ে যাওয়ার পর ৩ ঘণ্টা পর ফের পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে।২১ জুন মঙ্গলবার দুপুরে তাকে সদর উপজেলার পাকুড়িয়া গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামী সদর উপজেলার ইলশা গ্রামের নামাপাড়া গ্রামের মো. গুঞ্জন আলীর ছেলে।

পুলিশ ও মামলার সূত্রে জানা গেছে, গত ১৯ জুন রবিবার বিকেলে ২৪ গ্রাম হেরোইনসহ আব্দুস সালামকে র‌্যাব-১৪ এর একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শেরপুর সদর উপজেলার জঙ্গলদী আমতলা চৌরাস্তা এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। পরে র‌্যাব-১৪ তার বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দায়ের করে শেরপুর সদর থানায় সোর্পদ করে। পরে থানা পুুলিশ তার বিরুদ্ধে ২১ জুন রিমান্ড শুনানীর জন্য আদালতে হাজির করলে আদালত চত্বর থেকে কর্তব্যরত পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে হাতকড়া পড়া অবস্থাতেই পালিয়ে যায়।

পরে শেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ হান্নান মিয়া, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনসুর আহম্মেদ ও আদালতের পুলিশ পরিদর্শকের সাড়াশি অভিযানে ৩ ঘণ্টা পর ফের গ্রেফতার করে।
এ বিষয়ে শেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ হান্নান মিয়া বলেন, সালাম পালানোর পরপরই আমরা অভিযানে নামি। পালানোর ৩ ঘণ্টার মধ্যেই তাকে গ্রেফতার করেত সক্ষম হয়েছি। এ ঘটনায় কারো গাফিলতি রয়েছে কী না সেজন্য একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। কারো গাফিলতি প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা নেয়ার সুপারিশ করা হবে বলে তিনি জানায়।