Image Not Found!
ঢাকা   শুক্রবার ০৯ জুন ২০২৩ | ২৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সর্বশেষ সংবাদ

  ঝিনাইগাতীতে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনে দায়ে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড! (95)        নালিতাবাড়ীতে বৃষ্টির জন্য ইসতিস্কার নামাজ আদায় (95)        লোডশেডিং ও বিদ্যুৎ খাতে দুর্নীতির প্রতিবাদে শেরপুরে বিএনপির স্মারকলিপি প্রদান (95)        শেরপুরে ভাষা সৈনিক আব্দুর রশীদ এর ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ (95)        নালিতাবাড়ীর পাহাড়বাসী হাতির আক্রমণ থেকে বাঁচতে চায় (95)        নালিতাবাড়ী শিক্ষক সমিতি'র নির্বাচন || সভাপতি সুরুজ্জামান সম্পাদক মশিউর (95)        ঝিনাইগাতীতে মাদক বিরোধী র‍্যালী ও পথসভা অনুষ্ঠিত (95)        ঝিনাইগাতীতে মাদকসেবীকে ৪৫ দিনের কারাদন্ড ও অর্থদণ্ড (95)        বাজিতখিলা ইউনিয়ন পরিষদ উন্নয়ন তহবিল প্রকল্প বাস্তবায়নে উন্মুক্ত ওয়ার্ড সভা অনুষ্ঠিত (95)        নালিতাবাড়ীতে ২ ব‍্যবসায়ীকে জরিমানা করেছে ভ্রাম‍্যমাণ আদালত (95)      

হেফাজতের নায়েবে আমিরের পদত্যাগ!

সংগঠন থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নায়েবে আমির ও নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির আমির মাওলানা আব্দুল আউয়াল। সোমবার (২৯ মার্চ) পবিত্র শবে বরাতের রাতে একটি মসজিদে বয়ানের সময় তিনি এ ঘোষণা দেন। এ বিষয়ে জানতে তার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, 'আমি একটি ভিডিও বার্তা পাঠাচ্ছি। সেখানে সব প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন।' ওই ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, হরতালের দিন সকাল থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে, র‌্যাব, পুলিশ আর বিজিবি আমাকে মসজিদে নজরবন্দি করে রেখেছিলেন। তারা আমাকে স্পষ্ট করে জানিয়েছেন, উপর থেকে সরাসরি অ্যাকশনে যাওয়ার অর্ডার রয়েছে। তাই আমি মিছিল নিয়ে হরতাল পালন করতে পারিনি। কিন্তু হেফাজতের একদল অতি উৎসাহিত লোক এই বিষয়টি মানতে পারছে না। সেদিন প্রশাসনকে উপক্ষা করে হরতালের সমর্থনে যদি বের হতাম, তাহলে হয়তো মসজিদে নামাজ পড়ার অবস্থা থাকত না। মসজিদের সামনে কয়েকটা লাশও পরে থাকতে পারত। তখন আপনারাই লাশের পক্ষ নিয়ে বলতেন, মায়ের বুক খালি করে আমাকে নেতৃত্ব দিতে কে বলেছে? তাই আমি এদিকেও যেতে পারি নি, ওই দিকেও যেতে পারিনি। সোমবার দোয়া মহাফিলের কথা ছিল ডিআইটি মসজিদে। কিন্তু তারা আমাকে সরিয়ে দিয়ে শহরের দেওভোগ মাদরাসা মসজিদে দোয়া মাহফিল করে বলেছেন, আমার মতো নেতা তাদের প্রয়োজন নেই। তারা যেহেতু আমাকে সাইড করে দিয়েছে তাই আমি হেফাজতে আমিরের পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দিব। আমি মুসল্লিদের সাক্ষী রেখে বলছি, আমি হেফাজতের আমিরের পদে থাকব-না। এখন আমার একটাই রাস্তা। আমি হেফাজত ইসলামের নেতৃত্বে আর থাকব না। আমার আমির পদ দরকার নাই। আমার পক্ষ থেকে আর কোনো দিন কোনো ঘোষণা আসবে না। তোমরা যারা অতি উৎসাহীওয়ালা আছ, তোমরা বাবা হেফাজত ইসলাম কর।