Image Not Found!
ঢাকা   সোমবার ১৪ জুন ২০২১ | ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সর্বশেষ সংবাদ

  তিনজনকে হত্যা করতে ১১গুলি চালান এএসআই (2)        না ফেরার দেশে চলে গেলেন চেম্বারের পরিচালক লায়েছুর রহমান দারা (95)        বিয়ের খবর গোপন রাখার কারণ জানালেন রেলমন্ত্রী (2)        চেয়ারম্যান রুমানের রোগমুক্তি কামনায় দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত (95)        নোয়াখালীতে ইউপি সদস্যকে গুলি ও কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা (2)        সরপের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এড. মুকুল নির্বাচিত (2)        শেরপুরে চালককে নেশা সেবন করিয়ে অটোরিক্সা ছিনতাই (95)        শেরপুরে তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর জন্য গড়ে ওঠেছে ‘স্বপ্নের ঠিকানা’ গুচ্ছগ্রাম (95)        শেরপুরের নকলায় প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী-২০২১ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত (95)        নতুন বাংলাদেশ (95)      

দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতাল চালু হতে যাচ্ছে আগামীকাল

দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতাল চালু হতে যাচ্ছে আগামীকাল। রাজধানীর মহাখালীতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পাইকারি কাঁচাবাজারের ভবনে স্থাপন করা হয়েছে করোনা চিকিৎসার এ হাসপাতাল।

উদ্বোধনের বিষয়টি নিশ্চিত করে হাসপাতালটির পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসির উদ্দিন  বলেন, রোববার হাসপাতালটির সেবা কার্যক্রম উদ্বোধন করা হবে। শুরুতে আংশিকভাবে চালু হলেও এ মাসের শেষ নাগাদ হাসপাতালটির কার্যক্রম পূর্ণাঙ্গভাবে চালু করা হবে।

জানা যায়, জরুরি ভিত্তিতে রাজধানীতে চলমান সরকারি ও বেসরকারি করোনা হাসপাতালের পাশাপাশি আরো ১০টি হাসপাতালকে যুক্ত করছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মহাখালী কাঁচাবাজারের ১ লাখ ৮০ হাজার ৫৬০ বর্গফুট আয়তনের ফাঁকা ভবনে অস্থায়ীভাবে স্থাপন করা হয়েছে এ হাসপাতাল। এতদিন ছয় তলাবিশিষ্ট মার্কেটটি করোনা আইসোলেশন সেন্টার ও বিদেশগামীদের করোনা পরীক্ষার ল্যাব হিসেবে ব্যবহূত হতো। সম্প্রতি হাসপাতালে শয্যা ও আইসিইউসহ জরুরি সেবার ঘাটতি দেখা দেয়ায় ভবনটিকে হাসপাতালে রূপান্তরের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এখন করোনা হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু হলেও আলাদাভাবে ওই সেবা কার্যক্রমগুলো চলবে। হাসপাতালটিতে এক হাজার শয্যার সুবিধা থাকবে। এর মধ্যে ২১২ শয্যার আইসিইউ (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) এবং ২৫০ শয্যার এইচডিইউ (উচ্চ নির্ভরতা ইউনিট) ও ৫৪০ (সিঙ্গেল) কক্ষের আইসোলেশন ব্যবস্থা থাকবে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্র জানায়, এ হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দিতে ৫০০ চিকিৎসক, ৭০০ নার্স, ৭০০ স্টাফ এবং ওষুধ ও সরঞ্জামের ব্যবস্থা করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এরই মধ্যে শতাধিক চিকিৎসক ও দুই শতাধিক নার্স কাজে যোগ দিয়েছেন। বাকিরা শনিবারের মধ্যে কাজে যোগ দেবেন। হাসপাতালটি পরিচালনার দায়িত্বে থাকবে আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল ডিভিশন।